“কোয়েল মল্লিকের”

ভারতীয় বাংলা মুভির নায়িকা “কোয়েল মল্লিকের” ScAnDaL
প্রথমেই বলে রাখি যারা নিজ চোঁখে কিছু দেখেও বিশ্বাস করতে চান না তাদের এই ScAnDaL টি নামানোর কোন প্রয়োজন নেই। অনেকে আছেন তারা ঠিকি দেখতেছে যে এটা সত্যি তার পরেও বিশ্বাস করতে চান না বা শিকার করে না। তাই তাদের কাছে আমি কোন কিছু শেয়ার করতে আগ্রহী নই।
কিছু কথাঃ আমি চিন্তা ও করতে পারি নি যে “কোয়েল মল্লিক” এর ScAnDaL দেখবো!! আমি শুধু মনে করতাম আমাদের এপারের বাংলাই মনেহয় ScAnDaL এ ভর্তি হয়েগেছে এখন দেখি সব যায়গাতেই একি অবস্থা। ওপার আমাদের থেকে অনেক অংশেই এগিয়ে আছে তবে আর এই দিক দিয়েই বা পিছিয়ে থাকবে কেনো?
আর হ্যাঁ অবশ্যই কমেন্ট করবেন। আমি শুধু আপনাদের মাঝে শেয়ার করতেই থাকবো আর আপনারা মজা লুটতেই থাকবেন কিন্তু কোন ভালো/মন্দ কমেন্ট করবেন না তা হতে পারে না। আপনারা যদি কমেন্টকরেন আপনাদের মন্তব্য শেয়ার করেন তবে সামনে আপনাদের জন্য আরো আকর্ষণীয় কিছু নিয়ে হাজিরহবো!
ডাউনলোড করে নিন এখুনি  

কম্পিউটারের সাধারণ ১০ সমস্যার সমাধান

কম্পিউটার বা ল্যাপটপে কাজ করতে গেলে মাঝেমধ্যে কিছু সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। প্রায়ই হয় এমন সাধারণ সমস্যার সমাধান নিজে নিজেই করা যায়। এমন ১০টি সমস্যার সমাধান নিয়ে এ আয়োজন। আজ থাকছে তিনটি সমাধান। লিখেছেন মঈন চৌধুরী

কম্পিউটারশুরুতেই যা করণীয়
কোনো সমস্যা হলে অন্য কিছু করার আগে প্রথম কাজটিই হবে কম্পিউটার পুনরায় চালু বা রিস্টার্ট করা। এই কাজটি অনেক সমস্যার সমাধান করে দেয়। কম্পিউটারে সংযুক্ত কোনো যন্ত্রপাতি সমস্যা করলে সেটি বন্ধ করে আবার চালু করুন। তাতে কাজ না হলে যন্ত্রটি প্রথমে কম্পিউটার থেকে খুলে আবার লাগিয়ে নিন, তারপর সেটির সর্বশেষ সংস্করণের চালক সফটওয়্যার বা ড্রাইভার ইন্টারনেট থেকে নামিয়ে আবার ইনস্টল করুন।
১. ধীরগতির কম্পিউটার
কম্পিউটার খুব ধীরগতির হলে প্রথমে চিহ্নিত করতে হবে এটি আসলে কম্পিউটারের নিজের সমস্যা কি না। ওয়েবসাইট দেখতে সময় বেশি লাগা বা অনলাইনে ভিডিও দেখার সময় বাফারিং অবিরাম চলতে থাকাটা কম্পিউটারের সমস্যা না-ও হতে পারে। যদি মনে হয় কম্পিউটারেই সমস্যা, তাহলে দেখে নিন হার্ডডিস্কের যে ড্রাইভে অপারেটিং সিস্টেম ইনস্টল করা আছে (সাধারণত C:), তাতে পর্যাপ্ত পরিমাণ জায়গা আছে কি না। অপারেটিং সিস্টেম চলার সময় উইন্ডোজের ফাইল তৈরিতে খালি জায়গার প্রয়োজন হয়। অপর্যাপ্ত থাকলে ড্রাইভের কিছু জায়গা খালি করে ফেলুন। এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো সমাধান হলো ডিস্কম্যাক্স নামের একটি প্রোগ্রাম। নামানোর ঠিকানা http://goo.gl/rgcY4Q। রিসাইকল বিন, ইনস্টলেশন রেমন্যান্ট, ইউজার হিস্ট্রি, টেম্পরারি ফাইল, কুকিজ, উইন্ডোজ ক্যাশ ইত্যাদি অপ্রয়োজনীয় সবকিছু মুছে সিস্টেম ড্রাইভসহ পুরো হার্ডডিস্ক পরিষ্কার করে ফেলবে।
ধীরগতির আরেকটি সমাধান হলো মাইক্রোসফট সিস্টেম কনফিগারেশন টুল। অনেক অ্যাপলিকেশন আছে যেগুলো কম্পিউটার চালু হওয়ার সময় স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হয়ে কম্পিউটার পুরোপুরি প্রস্তুত হতে বাড়তি সময় লাগায়। এ জন্য Windows Key + R কি চেপে তাতে msconfig লিখে এন্টার চাপুন। এখান থেকে যেসব স্টার্টআপ আইটেম অপ্রয়োজনীয় মনে হয়, সেগুলো থেকে টিক উঠিয়ে দিন। তবে ম্যানুফ্যাকচারার ট্যাবে মাইক্রোসফট করপোরেশন লেখা আইটেমগুলো থেকে টিক ওঠাবেন না। এবার ওকে চেপে কম্পিউটার রিস্টার্ট করুন।
ইন্টারনেট সংযোগ২. ইন্টারনেট সংযোগে সমস্যা
ইন্টারনেট সংযোগের সমস্যা হলে ভালো সমাধান হলো www.speedtest.net ওয়েব ঠিকানা। এখানে স্পিড টেস্ট চালিয়ে দেখুন ইন্টারনেটের গতি কেমন। ইন্টারনেট সেবাদাতার দেওয়া সংযোগের গতির অন্তত অর্ধেক পাচ্ছেন কি না, পিং করলে ১০০ মিলিসেকেন্ডের কম থাকে কি না। আশানুরূপ না হলে পরীক্ষা করে দেখুন, কোনো কিছু ডাউনলোড বা আপলোড হচ্ছে কি না। অনেক টরেন্ট ডাউনলোডিং প্রোগ্রাম টাস্কবারের বদলে সিস্টেম ট্রেতে থেকে নেপথ্যে ডেটা ডাউনলোড বা আপলোড করতে থাকে। উইন্ডোজের অটোমেটিক আপডেট নির্বাচন করা থাকলেও ব্যাকগ্রাউন্ডে ডাউনলোড চলতে থাকে। এটি বন্ধ করতে চাইলে স্টার্ট বাটন চেপে সার্চ বক্সে লিখুন windows update এবং এন্টার চাপুন। ‘চেঞ্জ সেটিংস’ ক্লিক করে ‘নেভার চেক ফর আপডেটস’ অপশনটি নির্বাচন করে ওকে করুন। নেটওয়ার্কে ব্যবহূত হার্ডওয়্যারও পরীক্ষা করে দেখতে পারেন। রাউটার বা সুইচের রিসেট বাটন চেপে সংযোগ সমস্যার সমাধান পাওয়া যায়। অথবা দু-এক সেকেন্ডের জন্য পাওয়ার কেবল বিচ্ছিন্ন করেও এটা করা যায়।
৩. কম্পিউটার বারবার রিস্টার্ট
হার্ডওয়্যার সমস্যা করলে সেটা শনাক্ত করে সমাধান করা একটু কঠিনই। প্রথমে নিশ্চিত হতে হবে, উইন্ডোজ হালনাগাদ হচ্ছে কি না। এসব আপডেট ইনস্টল হওয়ার সময় স্বয়ংক্রিয়ভাবে কম্পিউটার রিস্টার্ট হয়। অনেক সময় ভাইরাস বা অ্যাডওয়্যারের কারণে এমনটা হতে পারে। অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার অথবা বিনা মূল্যের মাইক্রোসফট সিকিউরিটি এসেনশিয়ালস সর্বশেষ হালনাগাদসহ ইন্টারনেট থেকে নামিয়ে ইনস্টল করে স্ক্যান করে নিতে পারেন। নামানোর ঠিকানা http://goo.gl/EW85AC আর এর সর্বশেষ ডেফিনিশন আপডেট ফাইল নামানোর ঠিকানা http://goo.gl/8TnmU5। কম্পিউটারের ধরন অনুযায়ী (৩২ বা ৬৪ বিট) ‘ম্যানুয়ালি ডাউনলোড দ্য লেটেস্ট আপডেটস’ সেকশন থেকে এই সফটওয়্যারটির হালনাগাদ ফাইল নামাতে হবে অথবা ইন্টারনেটে সরাসরি হালনাগা করে নিতে পারেন।
কম্পিউটারের কোনো যন্ত্রাংশ মাত্রাতিরিক্ত গরম হলেও কম্পিউটার বারবার রিস্টার্ট নিতে পারে। আধুনিক অনেক কম্পিউটারে সেফগার্ড থাকে, যা যন্ত্রপাতি গরম হলে নিজে নিজেই কম্পিউটার বন্ধ করে দেয়। সিপিইউ খোলার অভিজ্ঞতা থাকলে এবং তাতে কোনো ওয়ারেন্টি সিল না থাকলে সেটি খুলে অনেক দিনের জমা ধুলোবালি ব্রাশ দিয়ে সাবধানে পরিষ্কার করে নিতে পারেন। তারপর র‌্যাম খুলে পরিষ্কার করে আবার লাগিয়ে নিন এবং হার্ডডিস্ক, ডিভিডি-রম ড্রাইভে সংযুক্ত তারগুলো ভালোভাবে লাগিয়ে রিস্টার্ট হওয়ার সমস্যা থেকে রেহাই পেতে পারেন।

 

৪. ডেস্কটপে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন

ওয়েব সাইট দেখার সফটওয়্যার (ব্রাউজার) খোলা না রাখলেও যদি ডেস্কটপে পপ-আপ উইন্ডো এসে অবাঞ্ছিত বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে, তবে বুঝতে হবে আপনার কম্পিউটারে কোনো অ্যাডওয়্যার ইনস্টল হয়ে আছে। এ থেকে মুক্তি পাওয়া সহজ কাজ নয়। ইন্টারনেটে পিসি স্পিড-আপ, পিসি অপটিমাইজার ইত্যাদি নামে প্রচুর সিস্টেম ইউটিলিট টুলস আছে কিন্তু বাস্তবে কাজের কাজ করে খুব কমই। এ ক্ষেত্রে বিশ্বস্ত এবং বিনা মূল্যে কাজের অ্যাডওয়্যার স্ক্যানার হচ্ছে ম্যালওয়্যারবাইটস অ্যান্টি ম্যালওয়্যার টুল। প্রথম কাজ হবে আগে থেকে ইনস্টল করা অ্যান্টি ভাইরাস সফটওয়্যার দিয়ে পুরো সিস্টেম স্ক্যান করা।

এতে কাজ না হলে সব ধরনের ম্যালওয়্যার মোছার জন্য কার্যকর ম্যালওয়্যারবাইটস অ্যান্টি ম্যালওয়ার প্রোগ্রামটি ইন্টারনেটের www.malwarebytes.org এই ওয়েব ঠিকানা থেকে বিনা মূল্যের সংস্করণটি নামিয়ে ইনস্টল করুন। স্ক্যান করার আগে বর্তমানে কোনো অ্যান্টি ভাইরাস সফটওয়্যার ইনস্টল করা থাকলে প্রথমে নিষ্ক্রিয় করে নিন। এর পরও কাজ না হলে সিস্টেম ড্রাইভে (সাধারণত সি ড্রাইভ) রাখা আপনার গুরুত্বপূর্ণ ফাইলগুলো অন্যত্র সরিয়ে অপারেটিং সিস্টেম পুরোপুরি নতুন করে ইনস্টল করতে হবে।

 

৫. গুগল ঠিকমতো কাজ না করা

ব্রাউজার হাইজ্যাক হওয়া ম্যালওয়্যারেরই আরেকটি ধরন। কিছু প্রোগ্রাম আছে, যা ওয়েব ব্রাউজারটি দখলে নিয়ে আপনার করা গুগল সার্চ গোপনে অন্য কোনো ভুয়া ওয়েবসাইটের পেজে নিয়ে যায়। তারপর কোনো কিছু জানতে চেয়ে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেওয়াসহ আপনার সিস্টেমকে আক্রান্ত করতে পারে। হালের সব ইন্টারনেট সিকিউরিটি অথবা অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারে রিয়েল-টাইম স্ক্যানার সংযুক্ত থাকে। প্রোগ্রামটির সেটিংস ঘেঁটে সেটি কার্যকর আছে কি না দেখে নিন। কাজ না হলে কন্ট্রোল প্যানেলের প্রোগ্রামস অ্যান্ড ফিচারস অপশন থেকে ব্রাউজারটি বেছে নিয়ে আনইনস্টল করে ফেলুন। পছন্দসই ব্রাউজারের সর্বশেষ সংস্করণ ইন্টারনেট থেকে নামিয়ে ইনস্টল করুন।

অনেক সফটওয়্যার ইনস্টল করার সময় বাড়তি অপশন হিসেবে তাদের নির্ধারিত টুলবার ইনস্টল করতে বলে। টুলবার ইনস্টল হয়ে গেলে ব্রাউজারে ব্যবহূত ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিনের বদলে তাদের কাস্টম সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহূত হয়ে আপনার তথ্য অনুসন্ধানে সঠিক ফল নাও দিতে পারে। সে জন্য অপরিচিত সফটওয়্যার ইনস্টল করার সময় কাস্টম অপশন নির্বাচন করে ধৈর্যসহকারে নির্দেশনা দেখে দেখে সফটওয়্যারটি ইনস্টল করুন। বিনা মূল্যে কোনো সেবা নেওয়ার অফার থাকলে সেগুলো পরিহার করুন। তার পরও যদি দেখেন, আপনার ব্রাউজারে অযাচিত অনেক অপশনে ভরপুর হয়ে আছে, তাহলে কন্ট্রোল প্যানেলের প্রোগ্রামস অ্যান্ড ফিচারস অপশন থেকে টুলবার প্রোগ্রামটি চিহ্নিত করে মুছে ফেলুন।

 

৬. ওয়াই-ফাই সংযোগ বারবার বিচ্ছিন্ন

ওয়াই-ফাইয়ের সংযোগ নিয়ে সমস্যায় পড়লে একটু ধাঁধায়ই পড়তে হয়। এটা কি নিজের কম্পিউটারে সমস্যা?

রাউটারে সমস্যা?

নাকি আইএসপির সমস্যা? এ ক্ষেত্রে ইন্টারনেট সেবাদাতা বা আইএসপিকে ফোন করার আগে নিজে নিজে কিছুটা চেষ্টা করা যেতে পারে। নিশ্চিত করুন, আপনার কম্পিউটারটি ওয়াই-ফাই রাউটারের আওতার ভেতরেই আছে কি না। তারপর দেখুন কম্পিউটারের তারহীন কার্ডটির সর্বশেষ ড্রাইভার ইনস্টল করা আছে কি না। এবার উইন্ডোজ ট্রাবলশুট ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

টাস্কবারের সিস্টেম ট্রেতে থাকা ওয়াই-ফাই আইকনে ডান ক্লিক করে ‘ট্রাবলশুট প্রবলেমস’ অপশনটি নির্বাচন করুন।

উইন্ডোজের নিজস্ব প্রোগ্রাম উইন্ডোজ নেটওয়ার্ক ডায়াগনস্টিক নামের টুলসটি সমস্যার সমাধান যদি না-ও করে, কিছু নির্দেশনা তো অন্তত পাওয়া যাবে।

Continue reading “কম্পিউটারের সাধারণ ১০ সমস্যার সমাধান”

শুরু হচ্ছে জাতীয় রোবোটিক্স উৎসব

বাংলাদেশের প্রকৌশল শিক্ষার্থীদের সংগঠন ইঞ্জিনিয়ারিং স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের উদ্যোগে স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের জন্যে শুরু হচ্ছে ‘জাতীয় রোবোটিক্স উৎসব-২০১৪’।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় ৭ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য এ প্রতিযোগিতায় থাকছে চারটি বিভাগে অংশগ্রহণের সুযোগ। ‘আইএআরসি’ বিভাগে অংশগ্রহণকারী রোবটগুলোকে একটি নির্ধারিত ট্র্যাকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ঘুরতে হবে। ‘ব্যাটল অব স্পিড’ বিভাগে দ্রুততম সময়ে নির্ধারিত ট্র্যাক পার হতে হবে। ‘রোবটস গট ফ্রিডম’ বিভাগে সব ধরনের রোবট প্রদর্শনের সুযোগ থাকবে। এ ছাড়াও স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে এ প্রতিযোগিতায় থাকছে ‘এক্সপ্লোরিং দ্য ড্রিমস’ যেখানে আগামী প্রজন্মের মাঝে রোবোটিক্স বিষয়ে আগ্রহ, উদ্ভাবনী প্রকল্প প্রণয়ন ও প্রশ্নোত্তরের আয়োজন থাকবে।

আয়োজক সূত্রে জানা গেছে, জাতীয় রোবোটিক্স উৎসবের সেরা প্রতিযোগীরা আন্তর্জাতিক রোবোটিক্স প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবেন।

প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে ভিজিট করতে হবে  www.esab.org.bd/nrf অথবা, fb.com/esab.bd ঠিকানায়।

গ্রেফতার হয়েছেন পপ তারকা জাস্টিন বিবার

নেশাগ্রস্থ অবস্থায় গাড়ি চালানোর অপরাধে গ্রেফতার হয়েছেন কানাডিয়ান পপ তারকা জ্যাস্টিন বিবার। বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
মিয়ামি পুলিশ জানিয়েছে, বিবারকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
১৯ বছর বয়সী এই সঙ্গীতশিল্পী সম্প্রতি পুলিশের সঙ্গে বেশ কয়েকটি ঝামেলায় জড়িয়েছেন।
লস অ্যাঞ্জেলসের এক প্রতিবেশীর বাড়িতে ডিম ছুঁড়ে সম্পদ নষ্ট করার দায়ে এক সপ্তাহ আগে বিবারকে অভিযুক্ত করা হয়। সে সময় পুলিশ বিবারের বাড়ি তল্লাশিও করে।
গত বছর অস্ট্রেলিয়ার এক হোটেলের দেয়ালের ছবি নষ্ট করেও বেকায়দায় পড়েন বিবার। তার এক মাস পরে ব্রাজিলে যেয়েও ঝামেলা পাকান এই বিতর্কিত গায়ক।
পুলিশ জানায়, বিবার আজ হলুদ রঙের একটি গাড়ি চালাচ্ছিলেন। পেছনে থাকা লাল রঙের একটি ফেরারি থেকে অন্য একজন চালককেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

মাথাব্যথা কী করি

মাথাব্যথা কার না হয়? শিশু থেকে বৃদ্ধ, সবাই কখনো না কখনো মাথাব্যথায় ভোগেন।
মাথাব্যথার ধরন বা কারণ অনুযায়ী চিকিৎসা নিতে হয়। এ জন্য প্রথমে প্রয়োজন রোগ নির্ণয় করা।
মাথাব্যথা মূলত দুই প্রকার
ক. ব্যথার উৎস মাথার ভেতর: এমন সমস্যা প্রাইমারি হেডেক নামে পরিচিত। যেমন: মাইগ্রেন, টেনশন হেডেক, ক্লাস্টার হেডেক ইত্যাদি।
১. মাথাব্যথার তাৎক্ষণিক নিরাময় করার জন্য বিভিন্ন বেদনানাশক ওষুধ সেবন করা যেতে পারে। আবার অতিরিক্ত বেদনানাশক ওষুধ সেবনও মাথাব্যথার কারণ হতে পারে। তাই খুব প্রয়োজন না হলে এবং চিকিৎসকের পরামর্শ ব্যতীত যখন-তখন ওষুধ খাওয়া উচিত নয়।
২. পরবর্তী সময়ে বারবার মাথাব্যথা যেন না হয় এবং ব্যথার তীব্রতা যেন কম থাকে, তার জন্য কিছু চিকিৎসা প্রয়োজন হতে পারে।
ব্যথা কমাতে কিছু কিছু অভ্যাসও পরিবর্তন করতে হবে। অতিরিক্ত ধূমপান, মদ্যপান, মাদক সেবন, চ-কফি, অনিয়মিত এবং অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ সেবন, রোদ বা অতিরিক্ত গরম আবহাওয়ায় বেশিক্ষণ থাকা, অতিরিক্ত শারীরিক, মানসিক পরিশ্রম, ক্ষুধার্ত থাকা ও সময়মতো না খাওয়া, যেকোনো ধরনের মানসিক চাপ ইত্যাদি মাথাব্যথার কারণ। তাই এসব অভ্যাস পরিবর্তন করলে মাথাব্যথা অনেকাংশে কমে আসবে।
পাশাপাশি ইতিবাচক জীবনচর্চা, সুনিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভ্যাস, শারীরিক বা মানসিক বিশ্রাম, পর্যাপ্ত ঘুম, মেডিটেশন ইত্যাদি মাথাব্যথার প্রকোপ কমাতে সাহায্য করে।
খ. ব্যথার উৎস যখন মাথার বাইরে: এটি সেকেন্ডারি হেডেক। এমন ব্যথার কারণটি বাইরে কোথাও রয়েছে, যাতে মাথাও আক্রান্ত হয়। যেমন: সাইনুসাইটিস, মাসটয়ডাইটিস, গ্লুকোমা, দাঁতের সমস্যা, আঘাত, মস্তিষ্কের টিউমার ইত্যাদি।
এ ক্ষেত্রে সাধারণত যে কারণে মাথাব্যথা হচ্ছে তা অনুসন্ধান করা জরুরি। একজন স্নায়ু বিশেষজ্ঞের তত্ত্বাবধানে পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে রোগ নির্ণয় করে চিকিৎসা করলেই রোগ নিরাময় সম্ভব।  ক্লিনিক্যাল নিউরোলজি, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস।

নকিয়ার ভবিষ্যৎ কোন পথে?

নকিয়ার মুঠোফোন ইউনিট যাচ্ছে মাইক্রোসফটের অধীনে। নকিয়া থাকছে শুধু টেলিকম যন্ত্রাংশ নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে। মুঠোফোন ইউনিট নিয়ে মাইক্রোসফট কী পরিকল্পনা করছে আর নকিয়ার ভবিষ্যত্ই বা কোন পথে?
নকিয়ার মুঠোফোন ব্যবসা আর পেটেন্ট লাইসেন্স কিনেছে বিশ্বের বৃহত্তম সফটওয়্যার নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট। মুঠোফোন সেটের বাজারে নিজেদের অবস্থান তৈরি করতে মাইক্রোসফটের এই উদ্যোগ। যুক্তরাজ্যের বাজার-বিশ্লেষকেরা জানিয়েছেন, মাইক্রোসফটের স্মার্টফোন প্রচেষ্টা শুরুতেই খুব বেশি সুখকর হচ্ছে না।
২০১৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ৭৪০ কোটি মার্কিন ডলারে নকিয়ার মুঠোফোন বিভাগ মাইক্রোসফট কিনে নেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পর বছরের শেষ প্রান্তিক অর্থাত্ অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর—এই তিন মাসে নকিয়ার মুঠোফোন বিক্রি ২৯ শতাংশ কমে গেছে। সেই সঙ্গে এই প্রান্তিকে নকিয়ার লোকসানের পাল্লাও ভারী হয়েছে। একসময় বাজারে জনপ্রিয় নকিয়ার তৈরি ফিচার ফোনের বিক্রি কমার পাশাপাশি নকিয়ার স্মার্টফোন বিক্রিও কমেছে প্রায় ৭ শতাংশ।
নকিয়ার অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট টিমো ইয়ামোটিলা চতুর্থ প্রান্তিকে নকিয়ার অবস্থা প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, নকিয়ার বেশি দামের স্মার্টফোনের চেয়ে সাশ্রয়ী দামের লুমিয়া৫২০ মডেলটি বিক্রি হয়েছে বেশি। স্মার্টফোন নির্মাতা অ্যাপল, স্যামসাং, সনির সঙ্গে প্রতিযোগিতা বেড়ে যাওয়ার কারণে নকিয়ার স্মার্টফোন বিক্রি কমেছে।
নকিয়ার পরিস্থিতি সম্পর্কে বাজার গবেষণাপ্রতিষ্ঠান ওভামের টেলিযোগাযোগ বিশ্লেষক নিক ডিলন জানিয়েছেন, মাইক্রোসফট ও নকিয়া জোটের পক্ষে হাই-এন্ড বা বেশি দামের স্মার্টফোনের বাজার থেকে বেরিয়ে আসা বড় রকমের চ্যালেঞ্জ। এ ছাড়াও উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমনির্ভর স্মার্টফোনগুলোতে এখনো গ্রাহকের পছন্দের অনেক অ্যাপ্লিকেশন নেই। গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ও অ্যাপলের আইওএস অপারেটিং সিস্টেম প্ল্যাটফর্মে যত অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে, উইন্ডোজ এখনো সেদিক থেকে পিছিয়ে রয়েছে।

গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে নকিয়ার মুঠোফোন ব্যবসা কিনে নেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পর মাইক্রোসফট তাদের পরিকল্পনা হিসেবে মাইক্রোসফটের পরিকল্পনা ও মার্কেটিং দলের সঙ্গে নকিয়ার কর্মীদের একসঙ্গে করে একটি দল করার ঘোষণা দিয়েছিল। নকিয়া ও মাইক্রোসফটের টিম একসঙ্গে মিলে স্মার্টফোন বাজারে উইন্ডোজ-নির্ভর স্মার্টফোনের জন্য নকিয়া ব্র্যান্ডকে আরও সামনে এগিয়ে নিতে কাজ করবে।
তবে বাজার-বিশ্লেষকেরা জানিয়েছেন, স্মার্টফোনের বাজারে এখনই মাইক্রোসফট ও নকিয়া জোটকে ফেলে দেওয়া যাচ্ছে না। বিশেষ কিছু পরিকল্পনা করলে এখনো মাইক্রোসফট ও নকিয়ার জন্য সুযোগ রয়েছে। এজন্য মাইক্রোসফটকে চীন ও ভারতের মতো উন্নয়নশীল বাজারগুলোর দিকে নজর দিতে হবে। বর্তমানে উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যবিত্তরা তাঁদের ফিচার ফোন থেকে স্মার্টফোনে যাওয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছেন। এ সুযোগটি মাইক্রোসফট নিতে পারে।
নকিয়ার বর্তমান অবস্থা নিয়ে খুশি নন বিনিয়োগকারীরাও। মুঠোফোনের ব্যবসায় ভালো করতে না পারলে নকিয়ার অবস্থা কতটা শোচনীয় হবে, ২০১৩ সালের চতুর্থ প্রান্তিকের আয় তা দেখিয়ে দিয়েছে।
বাজার-গবেষকেরা হিসাব করে দেখেছেন, মুঠোফোনের ব্যবসা ছাড়া ফিনল্যান্ডের কোম্পানি হিসেবে নকিয়ার চতুর্থ প্রান্তিকে আড়াই কোটি ইউরো লোকসান হয়েছে। মুঠোফোন ইউনিটটি বাদে নকিয়ার অন্য বিভাগের আয়ও কমে গেছে। তাই মুঠোফোন ইউনিট হাতছাড়া হয়ে যাওয়ায় নকিয়াকে এখন নতুন করে পরিকল্পনা সাজাতে হবে। এদিকে, মুঠোফোন ইউনিটের সঙ্গে নকিয়ার প্রধান নির্বাহী স্টিফেন ইলোপও মাইক্রোসফটে চলে যাচ্ছেন। এ অবস্থায় অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন টিমো ইয়ামোটিলা। এখন নকিয়ার একজন নতুন প্রধান নির্বাহীর প্রয়োজন পড়বে।
বাজার-বিশ্লেষকেরা অবশ্য নকিয়াকে পরামর্শ দিচ্ছেন যে, মুঠোফোন ইউনিট ছাড়া এখন নকিয়ার উচিত হবে তাদের নেটওয়ার্ক অবকাঠামো ব্যবসায় জোর দেওয়া। মুঠোফোন নির্মাতা নয়, নকিয়া এখন ফিনল্যান্ডের টেলিকম প্রতিষ্ঠান হিসেবেই পরিচয় তৈরি করতে পারে।
এদিকে, নকিয়ার মুঠোফোন ইউনিটকে নিয়ে একটু ভিন্নভাবে ভাবছে মাইক্রোসফট কর্তৃপক্ষ। চলতি বছরের মার্চ মাসের মধ্যেই নকিয়ার মুঠোফোন ইউনিট পুরোপুরি মাইক্রোসফটের অধীনে চলে আসবে।
মাইক্রোসফটের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, নকিয়ার এন্ট্রি লেভেলের আশা সিরিজের হ্যান্ডসেট ও সাশ্রয়ী হ্যান্ডসেটগুলোর পরিবর্তে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমনির্ভর সাশ্রয়ী স্মার্টফোন বাজারে আনার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে মাইক্রোসফট।
‘ইকোনমিক টাইমস’কে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে মাইক্রোসফট ইন্ডিয়া অপারেটর চ্যানেল গ্রুপ পরিচালক শার্লিন জানিয়েছেন, নকিয়া ও মাইক্রোসফটের চুক্তির ফলে মুঠোফোন ক্রেতারা ভবিষ্যতে কম দামের হ্যান্ডসেটের আশা করতে পারেন।
ফিচার ফোন ও এন্ট্রি লেভেল স্মার্টফোনে ক্রেতাদের আগ্রহ বাড়াতে মাইক্রোসফট উদ্যোগ নেবে বলে মনে করেন শার্লিন।
শার্লিন আরও জানান, সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে মুঠোফোনের দাম কমে আসবে। দাম কমানোর বিষয়টি পর্যালোচনা করবে মাইক্রোসফট। ফিচার ফোন থেকে গ্রাহক যাতে আরও বেশি স্মার্টফোন মুখাপেক্ষী হন এবং বেশি করে অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করেন, এজন্য মাইক্রোসফটের উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম-নির্ভর স্মার্টফোনের দামের বিষয়টি খেয়াল রাখবে বিশ্বের বৃহত্তম সফটওয়্যার নির্মাতাপ্রতিষ্ঠানটি।
থ্রিজি নেটওয়ার্ক বিস্তৃত হওয়ায় এখন গ্রাহকেরা থ্রিজি সুবিধার স্মার্টফোনে ঝুঁকছেন। তাই থ্রিজি সুবিধার সাশ্রয়ী স্মার্টফোন বাজারে আনতে কাজ করবে মাইক্রোসফট।
শার্লিন জানিয়েছেন, বর্তমানে নকিয়া ও মাইক্রোসফট বাজার বিশ্লেষণ ও গ্রাহকদের চাহিদা পর্যালোচনা করে নতুন স্মার্টফোন তৈরিতে কাজ করছে। এর ফলে দুই থেকে তিন বছরের মধ্যে মুঠোফোন সেটের দাম কমে যেতে পারে।

স্টিফেন হকিংয়ের নতুন ভাবনা কৃষ্ণগহ্বরের অস্তিত্ব নেই?

‘কৃষ্ণগহ্বরের অস্তিত্ব নেই’—এমন দাবি করে গবেষকেরা নিবন্ধ লিখতেই পারেন। আর সেটাকে খামখেয়ালিপূর্ণ বিবেচনা করে বাতিল করে দেওয়া যেতে পারে। কিন্তু স্বয়ং স্টিফেন হকিং যখন কৃষ্ণগহ্বর নিয়ে নতুন কোনো ভাবনা নিয়ে আসেন, তখন সেটা নিঃসন্দেহে বাড়তি গুরুত্ব পায়। কারণ, মহাজাগতিক রহস্যময় কৃষ্ণগহ্বরের ধারণার প্রবক্তাদের মধ্যে তিনিও একজন।
বিশ্বখ্যাত বিজ্ঞানী ও যুক্তরাজ্যের কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হকিংয়ের সঙ্গে আলাপচারিতার ভিত্তিতে তৈরি একটি নিবন্ধ সম্প্রতি অনলাইনে আলোচনায় এসেছে। এ-সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন নেচার সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়, ধ্রুপদি তত্ত্ব অনুযায়ী কৃষ্ণগহ্বর থেকে কোনো কিছুই বেরিয়ে আসার উপায় নেই। কিন্তু কোয়ান্টাম তত্ত্ব অনুযায়ী, কিছু শক্তিও বেরিয়ে যেতে পারে।
প্রতিটি কৃষ্ণগহ্বরের চারদিকে যে অদৃশ্য সীমানার কল্পিত আবরণ রয়েছে, তা ‘ইভেন্ট হরাইজন’ নামে পরিচিত। হকিং বলছেন, অদৃশ্য কৃষ্ণগহ্বরের প্রবল আকর্ষণ নয়, বরং একটি তুলনামূলক ‘অনুকূল দিগন্তের’ মাধ্যমে বস্তু ও শক্তি বন্দী হয়ে থাকে। পরে ঘটনাক্রমে সেগুলো বিমুক্ত হয়, তবে অনেকটা পরিবর্তিত বা বিকৃত রূপে। এর সঠিক পদ্ধতিটি এখনো রহস্য হয়ে আছে।
তবে ধারণাটির পূর্ণাঙ্গ ব্যাখ্যার জন্য একটি মহাকর্ষীয় শক্তি ও প্রকৃতির অন্যান্য বলের সমন্বয়ে একটি সুনির্দিষ্ট তত্ত্ব প্রতিষ্ঠার প্রয়োজন রয়েছে বলে বিজ্ঞানীরা স্বীকার করেন। ফলে গত প্রায় এক শতকব্যাপী তাঁরা যে বিষয়ে ভাবনা এড়িয়ে গেছেন, এখন সেটি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যেই গবেষণা করতে হবে।
নক্ষত্র যখন জ্বালানি পুড়িয়ে শেষ করে ফেলে, তখন তা সংকুচিত হতে থাকে। সাধারণ গ্যালাক্সিগুলোর মাঝে অবস্থানরত বড় বড় নক্ষত্র তাদের বিবর্তনের সর্বশেষ পরিণতিতে ব্ল্যাক হোল বা সৃষ্টি করে। নক্ষত্রগুলো অনেক বেশি সংকুচিত হয়েই ব্ল্যাক হোলের জন্ম দেয়।
কোনো নক্ষত্রের ঘনত্ব ও ভর অনেক বেশি হলে তার মহাকর্ষীয় শক্তি এতটাই শক্তিশালী হবে যে আলো পর্যন্ত সেখান থেকে বের হতে পারবে না। মহাবিশ্বের যেকোনো দুটি বস্তুর মধ্যবর্তী আকর্ষণই হচ্ছে মহাকর্ষীয় শক্তি। কৃষ্ণগহ্বর থেকে আলো কিছু দূর যাওয়ার আগেই সেই শক্তি তাকে পেছনে টেনে নেয়। জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা এই রহস্যময় গহ্বর সম্পর্কে সামান্য হলেও অভাবনীয় কিছু তথ্য পেয়েছেন।
হকিংয়ের ভাবনাবিষয়ক একটি নিবন্ধ মুদ্রিত আকারে প্রকাশের আগে অনলাইনের একটি বিশেষ সার্ভারে রাখা হয়েছে। এটির কথিত শিরোনাম, ‘কৃষ্ণগহ্বরের জন্য তথ্য সংরক্ষণ ও আবহাওয়ার পূর্বাভাস’। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সান্টা বারবারায় অবস্থিত কালফি ইনস্টিটিউট ফর থিওরিটিক্যাল ফিজিক্সের গবেষকদের সঙ্গে স্কাইপির মাধ্যমে হকিংয়ের একটি আলাপচারিতার ভিত্তিতে রচিত ওই নিবন্ধটি এখন অন্য বিজ্ঞানীরা পর্যালোচনা করছেন। নিউ সায়েন্টিস্ট ও নেচার।

‘ওই দিন অনেক আগেই শেষ’

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট খেলতে নামা বাংলাদেশ দলের জন্য আতঙ্কই ছিল। কিন্তু সর্বশেষ শ্রীলঙ্কা সফর সে ভয় কাটিয়ে দিয়েছে অনেকটাই। আরেকটি শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে কাল দলের প্রতিনিধি হয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসা সাকিব আল হাসানও মনে করিয়ে দিলেন সেটি। বাংলাদেশ দল এখন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জেতার জন্যই খেলবে
 ২০ উইকেট নেওয়ার সামর্থ্য কি আছে বাংলাদেশ দলের?
সাকিব আল হাসান: আমাদের বোলিং আক্রমণ তো ভালো। তার পরও নির্ভর করে উইকেটের ওপর। যত ভালো বোলিং আক্রমণই হোক, ফ্ল্যাট উইকেট হলে তো কঠিন। তবে আমার বিশ্বাস, স্পোর্টিং উইকেট হলে আমাদের সামর্থ্য আছে ২০ উইকেট নেওয়ার।
 সামর্থ্যটা কার বেশি? বোলারদের মধ্যে কাকে এগিয়ে রাখবেন—
সাকিব: সবাইকেই ভূমিকা রাখতে হবে। কেউ হয়তো ৫ উইকেট পাবে, কিন্তু বাকি সবাইকেও ১ উইকেট করে নিতে হবে। ফাস্ট বোলারদের বড় ভূমিকা থাকছে। আমাদের টেস্ট বোলিং আক্রমণ স্পিননির্ভর হলেও পেসারদেরও দায়িত্ব আছে। আর স্পিনারদেরও সামর্থ্য অনুযায়ী বল করতে হবে।
 শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বাংলাদেশ দলের পার্থক্য—
সাকিব: শেষবার শ্রীলঙ্কায় টেস্টে খুবই ভালো খেলেছে বাংলাদেশ। এখন যেহেতু নিজেদের মাঠে খেলা, একটু সুবিধা থাকবেই। গত এক-দুই বছর আমরা দেশের মাটিতে খুবই ভালো ক্রিকেট খেলছি। ওটা ধরে রাখতে পারলে মনে হয় না খুব একটা পার্থক্য থাকবে।
 নিজেদের মাঠে যে ধরনের সুবিধা আশা করেন—
সাকিব: স্পোর্টিং উইকেটই ভালো। আমরা যদি স্পিন উইকেট বানাই এমন নয় যে, ওদের স্পিনার নেই বা ওদের ভালো ব্যাটসম্যান নেই যারা স্পিনের বিপক্ষে ভালো ব্যাটিং করতে পারে। সব মিলিয়ে স্পোর্টিং উইকেট হলেই ভালো। ভালো ব্যাট করলে ব্যাটসম্যানরা রান পাবে। ভালো বোলিং করলে বোলাররা উইকেট পাবে। দল হিসেবে আমরা এখন অনেক অভিজ্ঞ। সামপ্রতিক সময়ে ব্যক্তিগত ও দলগতভাবে ভালো খেলছি। স্পোর্টিং উইকেট হলে খারাপ হবে না।
 এবার কারও চোট বা ফর্ম নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। এটা কি আত্মবিশ্বাস বাড়াবে?
সাকিব: শেষ এক-দুই বছর ধরে আমাদের দল খুব ভালো খেলছে। স্বাভাবিকভাবে সবার আত্মবিশ্বাস অনেক বেশি। পারফরমারের সংখ্যাও অনেক বেশি। দলের ভেতর একটা ভালো প্রতিদ্বন্দ্বিতা সব সময় চলছে। এমনকি যারা দলে নেই তারাও ভালো পারফর্ম করছে। এটা এক দিক থেকে চাপও। তবে এই চাপ দলের জন্য ভালো।
 শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যানদের মধ্যে কে বড় হুমকি—
সাকিব: সবাই, আউট তো সবাইকেই করা লাগবে। টেস্ট জিততে হলে ২০ উইকেট নিতে হবে। তার পরও সাঙ্গাকারা, জয়াবর্ধনে, ম্যাথুস আছে। সর্বশেষ সিরিজে অনেকেই ভালো খেলেছে। ওপরের দিকের ৬-৭ ব্যাটসম্যান তো সব সময়ই হুমকি।
 সিরিজের প্রস্তুতি কেমন হলো—
সাকিব: আমার মনে হয় ভালো। খুব বেশি ম্যাচ খেললেই যে প্রস্তুতি ভালো হবে এমন নয়। দুটি ম্যাচ হয়েছে, কিন্তু ভালো মানের ম্যাচ খেলা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমার কাছে মনে হয় সেটা হয়েছে। যদিও আমি ছিলাম না, তবে পত্রিকায় দেখেছি, টেলিভিশনের খবরে দেখেছি।
 শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে লক্ষ্য—
সাকিব: সব সময় আমরা জেতার জন্যই খেলি। ড্র কিংবা ভালো খেলব, ওই দিন অনেক আগেই শেষ। জেতার জন্য অবশ্যই খেলব। পুরো দলই সেভাবে চিন্তা করছে। তবে যেহেতু পাঁচ দিনের খেলা, অনেক সেশন আছে। খেলাটাকে ছোট ছোট সেশনে ভাগ করে নিতে হয়। সেশনগুলো জিততে পারলে ভালো ফলাফল করা সম্ভব।
 ওপেনিং জুটি নিয়ে মন্তব্য—
সাকিব: বলা মুশকিল কে খেলবে না খেলবে। মার্শাল কিছু ম্যাচ (দুটি টেস্ট) খেলেছে। শামসুর এখনো খেলেনি। ইমরুল খেলেছে, অভিজ্ঞতা আছে, যদিও অনেক দিন বাইরে ছিল। দায়িত্ব সবারই। যে নতুন এসেছে তারও দায়িত্ব আছে। বাংলাদেশের সেরা ১৫ জন খেলোয়াড়ই এখানে, এরা পারফর্ম করেই এসেছে। একটা দলে দু-একজন পারফর্ম করলে খুব কম ম্যাচই জেতা যায়।

ক্যাটরিনার হৃদয়ে কার ঠাঁই?

[advps-slideshow optset=”1″] সালমান, রণবীর নাকি হৃতিক? কার সঙ্গে সম্পর্ক রাখছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফ? সালমান-রণবীরের সঙ্গে ক্যাটরিনার সম্পর্কের কথা এত দিনে বলিউডপ্রেমীরা নিশ্চয় জেনেছেন। কিন্তু হৃতিক?
সালমান-ক্যাটরিনার সম্পর্কের খাতা আগেই বন্ধ হয়ে গেছে। এখন নাকি রণবীরের কাছ থেকেও দূরে সরে গেছেন ক্যাটরিনা! তবে কি নতুন মনের মানুষ খুঁজে পেয়েছেন ক্যাটরিনা? বলিউডপাড়ার হালের গুঞ্জন যদি সত্যি হয়, তবে ক্যাটরিনার সেই মনের মানুষ হতে পারেন হৃতিক রোশন। টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
বলিউডে রটেছে হৃতিক রোশন আর ক্যাটরিনা এখন আর শুধু বন্ধু নন। সম্পর্কের গভীরতা বেড়েছে তাঁদের মধ্যে।
গত বছরের ডিসেম্বর মাস থেকেই ব্যক্তিগত এবং পেশাগত জীবনে সমস্যার মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন ‘কৃশ’খ্যাত হৃতিক। সম্প্রতি মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার করিয়েছেন তিনি। স্ত্রী সুজানের সঙ্গে দীর্ঘ দাম্পত্য জীবনের ইতিও ঘটেছে তাঁর। অনেকেই ধারণা করেন, ক্যাটরিনার সঙ্গে হৃতিকের ঘনিষ্ঠতা আর সুজানের সঙ্গে অর্জুন রামপালের ঘনিষ্ঠতার কারণে ভেঙেছে এই জুটির সংসার।
তবে বলিউডপাড়ায় জোর গুঞ্জন, পর্দার পাশাপাশি বাস্তব জীবনে হৃতিকের সঙ্গে ক্যাটরিনার ঘনিষ্ঠতা মোটেও মেনে নিতে পারছিলেন না সুজান। ‘ব্যাং ব্যাং’ ছবির সেটে ক্যাটরিনার সঙ্গে হৃতিকের উপস্থিতি নিয়ে সুজানের সঙ্গে শুরু হয়েছিল বাগবিতণ্ডা।

জিন্দেগি না মিলেগি দোবারা ছবির পর থেকেই হৃতিকের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রেখে চলেছেন ক্যাটরিনা। তবে এ দুজনের গভীর সম্পর্কের বিষয়টি প্রকাশিত হয়েছে হৃতিকের ঘর ভাঙা আর রণবীরের সঙ্গে ক্যাটরিনার দূরত্ব তৈরির পর। সম্প্রতি রণবীরকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন ক্যাটরিনা। এমনকি দুজন এখন এতটাই দূরত্ব বজায় রেখে চলছেন যে ধারণা করা হচ্ছে সালমানের পর এবার বোধ হয় রণবীরেরও হৃদয় ভাঙল।

সুচিত্রার বাড়ি উদ্ধার করা হবে

[advps-slideshow optset=”1″] সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, পাবনায় সুচিত্রা সেনের পৈতৃক বাড়ি উদ্ধারে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। সরকারিভাবে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে বাড়িটি উদ্ধার করা হবে।
গতকাল শুক্রবার বিকেলে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর জাতীয় সংগীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে কিংবদন্তি অভিনেত্রী সুচিত্রা সেন স্মরণসভায় তিনি এ কথা বলেন। শিল্পকলা একাডেমী এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
আসাদুজ্জামান নূর আরও বলেন, দুই বাংলার মানুষের প্রিয় নায়িকা সুচিত্রা সেন। তাঁর বাংলাদেশের বাড়িতে ‘সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা’ গঠন করা হবে। সেখানে মহানায়িকার ব্যবহূত দ্রব্যাদি আনা হবে ভারত থেকে।
স্মরণসভায় পাবনার সুচিত্রা সেন স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রামদুলাল ভৌমিক বলেন, বর্তমানে বাড়িটি ইমাম গাযযালী ইনস্টিটিউটের দখলে। পাবনাবাসীর অনেক দিনের চাওয়া এই বাড়িতে সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা করা হোক। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন সংস্কৃতিসচিব রণজিৎ কুমার বিশ্বাস।
সভাপতির বক্তব্যে একাডেমীর মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী জানান, সুচিত্রা সেনকে নিয়ে একাডেমীর পরবর্তী কার্যক্রমে থাকবে পাবনায় তাঁর বাড়ি উদ্ধার, তাঁর জীবন ও কর্মের আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন, স্মারকগ্রন্থ রচনা এবং ৬৪ জেলায় ‘সুচিত্রা সেন চলচ্চিত্র উৎসব’ আয়োজন।
গতকাল শুক্রবার ছুটির দিনে সন্ধ্যায় একাডেমীর সংগীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠানে ছিল উপচে পড়া ভিড়। আলোচনার পর দেখানো হয় মহানায়িকার অভিনীত ছবি উত্তর ফাল্গুনী। আজ শনিবার উৎসবের শেষ দিনে বিকেল চারটা ও সন্ধ্যা ছয়টায় দেখানো হবে সুচিত্রা সেন অভিনীত হিন্দি ছবি দেবদাস ।