বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা ডিসপ্লে

বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা হাই ডেফিনেশন বা এইচডি ডিসপ্লে তৈরি করেছে এলজি।

পাঁচ দশমিক দুই ইঞ্চি মাপের এ ডিসপ্লে মাত্র দুই দশমিক দুই মিলিমিটার পুরু। হালকা-পাতলা স্মার্টফোন তৈরিতে এলজির এই পাতলা ডিসপ্লে ব্যবহূত হবে। এক খবরে এ তথ্য জানিয়েছে সিনেট।

প্রযুক্তি-বিশ্লেষকেরা জানিয়েছেন, বর্তমান যুগ হচ্ছে হালকা-পাতলা মোবাইল পণ্যের যুগ। দীর্ঘদিন ধরেই মোবাইল পণ্যগুলোকে হালকা-পাতলা করার উপায় খুঁজছে স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো।

১০ জুলাই বুধবার বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা এইচডি এলসিডি প্যানেলের ঘোষণা দিয়ে এ সমস্যার সমাধান দিল এলজি। এলজির এ ডিসপ্লে ব্যবহারে স্মার্টফোন হবে আরও হালকা-পাতলা।

এলজি ডিসপ্লে ইউনিটের ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইওং-কো কিম এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা এইচডি এলসিডি প্যানেল তৈরির ফলে হাই এন্ড স্মার্টফোন বিভাগ আরও উন্নত হবে। স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট কম্পিউটারের কথা মাথায় রেখে ভবিষ্যতে আরও উন্নত ডিসপ্লে তৈরিতে কাজ করবে এলজি।

 

এলজির নমনীয় ডিসপ্লের স্মার্টফোন পরিকল্পনা

এইচডি এলসিডির পাশাপাশি নমনীয় ডিসপ্লে তৈরি করছে এলজি। নমনীয় ডিসপ্লে তৈরিতে কাচের পরিবর্তে নমনীয় প্লাস্টিক ফিল্ম ব্যবহার করা হয়। সাধারণত স্মার্টফোন তৈরিতে কাচ ব্যবহার করার কারণে তা পড়ে গেলে সহজেই ভেঙে যায় এবং ওজনে ভারী হয়। স্মার্টফোন প্রযুক্তির উন্নয়নে নমনীয় ডিসপ্লে তৈরির বিষয়টি বড় ধরনের অগ্রগতি হিসেবেই ধরা হচ্ছে। শিগগিরই নমনীয় বা বাঁকানো ডিসপ্লেযুক্ত স্মার্টফোন বাজারে আনবে এলজি।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সহজে বাঁকানো সম্ভব ও নমনীয় ডিসপ্লেযুক্ত স্মার্টফোন তৈরিতে কাজ করছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান এলজি। এ ছাড়াও ২০১২ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার আরেক প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান স্যামসাং বাঁকানো ডিসপ্লে প্রদর্শন করেছিল। স্যামসাং ছাড়াও নমনীয় ডিসপ্লে প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে নকিয়া।

এদিকে এলজি মোবাইল বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন, এলজির ডিসপ্লে বিভাগের তৈরি নমনীয় ওএলইডি স্ক্রিনযুক্ত একটি স্মার্টফোন চলতি বছরের শেষ নাগাদ বাজারে আসতে পারে। পাশাপাশি বাজার-বিশ্লেষকেরা জানিয়েছেন, স্মার্টফোনের বাজারে শক্ত অবস্থান দখল করছে এলজি। বর্তমানে স্মার্টফোনের বাজারে স্যামসাং ও অ্যাপলের পরের স্থানটি এলজির।