ফ্লাইট বিএস২১১ দুর্ঘটনা: হতাহতদের জন্য দোয়া-প্রার্থনা

নেপালের রাজধানী কাঠমাণ্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে প্লেন দুর্ঘটনায় হতাহতদের জন্য সারাদেশে সব ধর্মের উপাসনালয়ে বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনা আদায় করা হয়েছে। এর মাধ্যমে নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানানো হয়। পাশাপাশি আহতদের দ্রুত সুস্থতা ও আরোগ্য কামনা করা হয়।শুক্রবার (১৬ মার্চ) দুপুরে জুমার নামাজের পর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। সকালে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দিরে আয়োজন করা হয় বিশেষ প্রার্থনার। নগরীর অন্যান্য মসজিদ-মন্দির-গির্জা ও প্যাগোডায়ও হতাহতদের স্মরণে দোয়া ও প্রার্থনা করা হয়েছে।এর আগে গত ১২ মার্চ প্লেন দুর্ঘটনায় ১৫ মার্চ (বৃহস্পতিবার) সারা দেশে রাষ্ট্রীয় শোক এবং ১৬ মার্চ (শুক্রবার) মসজিদ-মন্দিরসহ সব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও উপাসনালয়ে দোয়া-প্রার্থনা কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। গত ১৪ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এ সংক্রান্ত এক প্রজ্ঞাপনে জানায়, গত ১২ মার্চ (সোমবার) নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলার বিএস২১১ নম্বর ফ্লাইট বিধ্বস্ত হয়ে দেশি-বিদেশি ৫১ জন আরোহীর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা এবং তাদের শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও সহমর্তিতা প্রকাশ করা হয়েছে।